ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে রোমার কাছে বার্সেলোনার ২-৪ গোলে পরাজয়

দ্বিতীয়ার্ধে ব্যর্থতার কারণে বার্সেলোনা মৌসুমের শুরুতে প্রথম খেলায় এ এস রোমার কাছে ৪-২ গোলের ব্যবধানে আমেরিকার ডালাস,  টেক্সাসে অনুষ্ঠিত খেলায় পরাজয় লাভ করে। প্রথমার্ধে তারা দুর্দান্ত খেলা প্রদর্শন করে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১০ মিনিটে তাদের খেলায় ছন্দপতন ঘটে এবং তার সুযোগ নিয়ে রোমা এগিয়ে যায়। যদিও বার্সার পুরো দলই মাঠে উপস্থিত ছিল তারপরেও বার্সা আর খেলায় ফিরে আসতে পারেনি এবং যার ফলে এক তাদের একটি শোচনীয় পরাজয় মেনে নিতে হয় ‌। যদিও এই পরাজয় তাদের জন্য খুব বেশি কিছু নয় কারণ এটা  মৌসুম শুরু হবার আগের খেলা।

রোমার কাছে বার্সার পরাজয়
Source: Daily Post Nigeria

প্রথমার্ধ  প্রথমার্ধের প্রথম ২০ মিনিট পুরোটাই বার্সার দখলে ছিল, ঠিক যেমন তারা টটেনহ্যামের বিপরীতে খেলেছিল তেমনটাই খেলছিল। উত্তেজনাকর পাস এবং জাবির খেলা সত্যিই অনেক চমকপ্রদ ছিল। ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় ঠিক যখন যেখানে বলটি পাস  দেওয়ার প্রয়োজন ছিল সেখানেই পাস দিচ্ছিলেন এবং যখনই তার পায়ে বল ছিল তখন পুরো দলটি আক্রমনাত্মক হয়ে উঠছিল।

প্রথম ১-২ টি গোল রাফিনহা এবং মুনির এর দুর্দান্ত খেলায় দ্রুত চলে আসে। কিন্তুএই গেমে যখন রোমান খেলোয়াড়রা আর্থার এবং রাফিনহাকে টার্গেট করে খেলতে থাকে তখন খেলাটা অনেক চ্যালেঞ্জিং হয়ে ওঠে। এবং ঠিক তার পরপরই বার্সা খেলায় তাদের ছন্দ হারিয়ে ফেলে এবং আমরা একটি সাদামাটা বার্সার খেলা দেখতে থাকি। যদিও বার্সা প্রথমার্ধে অধিকাংশ সময়ে বল তাদের পক্ষে রাখতে সক্ষম হয় তারপরও ইতালীয়ানদের কাছে হাফটাইমের পরে তারা আরশ ক্তভাবে দাঁড়াতে পারেনি। দ্বিতীয় ভাগে ইতালীয়ানরা আরো বেশি আক্রমনাত্মক হয়ে ওঠে এবং স্টিফেন এল সারাওয়ের দুটি গোল খেলায় সমতা নিয়ে আসে।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলাটি হঠাৎ করেই জমে ওঠে, এবং খুব সম্ভবত আমরা দ্বিতীয়ার্ধের আগে বেশ কিছু পরিবর্তন দেখতে পেতাম যেটা দর্শকদের জন্য খুবই দুঃখজনক হত কারণ দর্সক খুব ভালো একটি  খেলা উপভোগ করছিল।

রোমার কাছে বার্সার পরাজয়
Source: Barca Blaugranes

দীতীয়্যার্ধঃ এর্নেস্তো ভালভেরদে প্রথমার্ধে খেলোয়াড় পরিবর্তন না করলেও দ্বিতীয়ার্ধে তিনি ৬ জন খেলোয়াড় পরিবর্তন করেন। বদলি খেলোয়াড়দের সাথে প্রথমার্ধের খেলোয়াড়রা এক যোগ হয়ে প্রথমার্ধ থেকে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুটা বেশ ভালই খেলছিল, এবং এর মধ্যে কাতালানদের হয়ে ম্যাল্কন  তার প্রথম গোলটি করতে সক্ষম হন।

খেলার ৬০মিনিটের মাথায় দুই দলের কোচ সিদ্ধান্ত নেন যে তারা পুরো খেলারদলের মধ্যে একটি পরিবর্তন নিয়ে আসেন, যা থেকে আমরা বার্সায় দ্বিতীয়ার্ধে কতগুল নতুন খেলোয়াড় মাঠে পাই। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে বি দলকে মাঠে নামানোর কারণে অনভিজ্ঞ এই দলটি টটেনহ্যাম দলের অভিজ্ঞ খেলোয়াড় দের সামনে খুব বেশি একটা পেরে উঠতে পারেনি। বার্সার ডিফেন্স খুবই দুর্বল হয়ে পড়ে এবং তাদের ব্যাক্লিংকও  অনেক গুলো ভুল খেলা খেলে, যে কারণে ইতালিয়ানরা খেলার শেষ দশ মিনিটের আগে খেলায় সমতা ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়।

ঠিক তার পাঁচ মিনিট পরে ব্রায়ান ক্রিসতানত ডি বক্সের ভেতরে ঢোকার সুযোগ পেলেই তিনি সে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে জোসেপ কে ধোকা দিয়ে দলকে একটি গোলে এগিয়ে নিয়ে যান। এরপর তুমিডি বক্সের মধ্যে প্যাট্রিককে ফাউল করলে ইতালিয়ানরা পেনাল্টির সুযোগ পায়। দিয়াগো পেনাল্টি থেকে গোল করে বার্সার সাথে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

রোমার কাছে বার্সার পরাজয়
Source: Republic TV

আর ঠিক এভাবেইচোখের পলকে আট মিনিটে তিনটি গোল করে রুমা খেলায় জয় লাভ করে। ফলাফলে তেমন কিছু একটা যায় আসে না, কিন্তু বি দলের এই খেলোয়াড়রা খুবই ভেঙে পড়ে এবং প্রথমার্ধের খেলার দ্রুততার সাথে তারা দ্বিতীয়ার্ধের সামঞ্জস্যতা করতে পারেনি। তবে এটা সিজনের কেবল শুরু এবং মনে হয় না এই ছেলেদেরকে পুরো মৌসুমে আমরা আর মাঠে খেলতে দেখতে পারব।

, , , , , , , , , , , , ,