বিশ্বকাপ ২০১৮ কোয়ার্টার ফাইনালঃ ব্রাজিল বনাম বেলজিয়াম ম্যাচের পূর্ব বিবরণ

ব্রাজিল ২০১৮ বিশ্বকাপ এর অন্যতম সেরা দল। যদি বিশ্বকাপ ফুটবল শুরু হবার আগে কাউকে জিজ্ঞেস করা হতো এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোল দেবে কোন দল ? তাহলে উত্তর একটাই ব্রাজিল। ব্রাজিলের বুদ্ধিদীপ্ত খেলা এবং গোলের জন্য তৃষ্ণা তাদেরকে 2018 রাশিয়া বিশ্বকাপের অন্যতম দক্ষিণ আমেরিকার দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

Source: FIFA

এই বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত বেলজিয়াম মোট ১২ টি গোল করেছে । ব্রাজিলের মার্শাল , থিয়াগো সিলভার অনবদ্য রক্ষণাত্মক খেলা ব্রাজিল কে এখন পর্যন্ত এই বিশ্বকাপে তিনশো দশ মিনিট টিকিয়ে রেখেছে। এই বিশ্বকাপে ব্রাজিল এখনো খুব কষ্ট করে তাদের আক্রমণাত্মক এবং রক্ষণশীল খেলা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে।

শেষ ষোলতে ব্রাজিল-মেক্সিকো কে এবং বেলজিয়াম জাপানকে হারিয়ে আজ দুজনেই কোয়ার্টার-ফাইনালে এসে একে অন্যের মুখোমুখি হচ্ছে। দুটি দল শুক্রবারে কাজান এরিনা তে একে অন্যের মুখোমুখি হবে তারা। ব্রাজিল মেক্সিকো কে ২-০ গোলে পরাজিত করে , এবং যেখানে নেইমার একটি গোল করেছে এবং একটি গোলে সে সাহায্য করেছিল।অন্যদিকে বেলজিয়াম জাপানকে ৩-২ গোলে এক উত্তেজনাকর ম্যাচে হারিয়ে শেষ আটে জায়গা করে নেয়। বদলি খেলোয়াড় সাবাসিয়ান চার্লি যে কিনা একদম শেষ মুহূর্তে এসে বেলজিয়ামকে ২-০ গোল থেকে আবার খেলায় ফিরিয়ে নিয়ে আসে।

Source: Loop News

নেইমারের ঘটনাবহুল বিশ্বকাপঃ

নেইমারের জন্য এবারের বিশ্বকাপ টা একটা ঘটনাবহুল বিশ্বকাপ হয়ে থাকবে। নেইমারে কৃতিত্ব এবার অনস্বীকার্য কিন্তু তার সাথে তার কিছু বিতর্কিত খেলার ধরন রয়েছে । মেক্সিকোর সাথে তার খেলার ধরন তার সমর্থকরা মোটেউ পছন্দ করেন নাই এবং তারাই এবার তাকে কটাক্ষ করছে যেন সে মাঠে না নামে।

ব্রাজিলের কোচ জুয়ান কার্লস রোজারিও পর্যন্ত নেইমারকে কটাক্ষ করতে পিছপা হননি ।তিনি বলছেন এটা কোনোভাবেই একটি ভালো ফুটবল খেলার উদাহরণ হতে পারে না, তিনি বলছেন আমার দেখে মনে হচ্ছে কতগুলো শিশু ফুটবল খেলছে, তিনি এরকম আরো বলেছেন খেলাটা শুধুমাত্র কৌশলের ,একাগ্রতার এবং পুরুষত্বের এখানে কোনভাবেই ভাড়ামির জায়গা নেই।

৯৪ মিনিটের নাচের চ্যডলির গোল বেলজিয়ামকে জাপানের বিরুদ্ধে যে জয় দিয়েছে তা বিগত ৪৮ বছরের মধ্যে প্রথম দল হিসেবে তাদেরকে সম্মানের জায়গা দিয়েছে । জাপানের সাথে এই বিষয়টি মার্টিনেজের জন্য অতি সম্মানজনক একটি বিষয় ছিল এছাড়াও আরও ৯ বার এই ধরনের খেলার কারণে পানামার সাথে ৩-০ তিউনিসিয়ার সাথে ৫-২ এবং ইংল্যান্ডের সাথে ১-০ ব্যবধানে জয় লাভ করে। বেলজিয়াম কে জিততে হলে নেইমারের সাথে তাল মিলিয়ে উল্লেখযোগ্যভাবে তাদেরকে মাঠে খেলতে হবে।

নেইমারের ইনজুরি থাকা সত্ত্বেও মেক্সিকোর সাথে ২-০ গোলে জয় এবং রবার্তো ফিরমিনো কে ওয়ার্ল্ড কাপে তার প্রথম গোলটি করতে সাহায্য করে । নেইমারের উপর সবারই আশা একটু বেশি কারণ তার শান্ত কৌশল দীপ্ত এবং সকল স্থানে খেলার অভিজ্ঞতা ব্রাজিল দলটিকে আরেকটি মাত্রা এনে দেবে।

Source: scroll.in

বেলজিয়ামের জন্য চ্যালেঞ্জঃ

ব্রাজিলের আক্রমণাত্মক খেলা এবং তাদের রক্ষন ভাগকে ভেঙে গোল করা বেলজিয়ামের জন্য চরম একটি পরীক্ষা হতে চলেছে, যেটা আমরা দেখতে পাই বেলজিয়াম এবং সুইজারল্যান্ডের মধ্যেকার ১-১ ড্রতে। কারণ বেলজিয়াম এবং সুইজারল্যান্ড এর মধ্যেকার খেলাতে বেলজিয়াম সুইজারল্যান্ড এর রক্ষণভাগকে অতিক্রম করে গোলকরার খুব বেশি একটা সুযোগ পায়নি।

ব্রাজিলের মধ্যভাগের খেলোয়ার থিয়াগো সিলভা এবং মিরান্দা শক্তপোক্ত ভাবেই মাঠে নামবে কারণ তাদের মাথায় ঠিকই আছে কিভাবে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলকে সেমিফাইনালে পৌঁছে নেওয়া যায়। যেখানে হয়তো তাদের জন্য অপেক্ষা করবে ফ্রান্স কিংবা উরুগুয়ে। মেক্সিকো সাথে ম্যাচ শেষে সিল্ভা সাংবাদিকদেরকে জানান মেক্সিকোর সাথে তাদের খেলাটা কখনোই সহজ ছিল না তাদের একটি শক্ত রক্ষণভাগ মেক্সিকোর সাথে বিজয় এনে দিয়েছিল।

জাপানের মতো ভুল ব্রাজিল করতে চায় না কারণ যেখানে জাপান ২-০ গোলে এগিয়ে থাকার পরেও খেলায় জয়লাভ করতে পারেনি শুধুমাত্র তাদের একটু দুর্বল রক্ষণভাগের কারণে আর সেখানে ব্রাজিলের রয়েছে একটি শক্ত রক্ষণভাগ। যকে তারা সম্পুর্ন কাজে লাগাতে চায়। যার উপরে রয়েছে সবার দৃষ্টি।

ফ্রেন্স রেডিওর কন্সালট্যান্ট উইলিয়াম গালাস একজন প্রাক্তন ডিফেন্ডার হিসাবে বলছেন আমার কাছে সিলভা এবং মিরান্ডার খেলা খুবই ভালো লাগে। তার মতে তারা হচ্ছেন এই বিশ্বকাপের মধ্যম রক্ষণভাগের সেরা জুটি।

ব্রাজিল বনাম বেলজিয়ামের বেটিং লাইনের দিকে একটু তাকানো যাকঃ

বেলজিয়ামের জেতাঃ +৩৫০

ব্রাজিলের জেতাঃ +১০০

ড্রঃ +২১০

সর্বমোট গোলঃ ২

উপরে +১০০

নিচে -১২০

ব্রাজিলঃ অ্যালিসন; ফ্যাগনার, সিলভা, মিরান্দা, মারসেলো; পলিনহো, ফারনানদিনহো, কোতিনহো; উইলিয়ান, জেসুস; নেইমার।

বেলজিয়ামঃ কর্তোয়া; অ্যালডারউইয়ারল্ড, কম্পানি, ভেরতোজেন; চাদলি, উইটজেল, ডি ব্রুইন, মিউনিয়ের; ফেলাইনি, ইডেন হ্যাজার্ড; রোমেলু লুকাকু।

পরবর্তী বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হতে কে তাদের স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রাখছে তা জানার জন্য আমাদের খেলা শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

 

, , , , , , , , , , , , , , , ,