বাংলাদেশ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় টেস্টঃ ২য় দিন

২য় টেস্ট – ২য় দিন:

বাংলাদেশ তাদের ২য় দিনের খেলা ২৫৯/৫ উইকেট শুরু করে এবং তারা রানের চাকা ৫০৮ রান পর্যন্তই সচল রাখতে পেরেছিল। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে তার ৩য় শতকের জন্য অভিনন্দন যা কিনা তার শেষ ৩ টেস্টের মধ্যে ২য়।

প্রথম সেশনে সাকিব আল হাসান যেভাবে ব্যাটিং করছিল তা দেখে মোটামুটি অনুমেয় ছিল যে তিনি লাঞ্চ বিরতির পূর্বে যত দ্রুত যত বেশি রান তোলা যায় তার পেছনেই ছুটছিলেন। কিন্তু তিনি এই বিরতির আগে ১৩৯ বলে ৮০ রান করে আউট হন। ৬ষ্ঠ উইকেট জুটিতে তিনি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে সাথে নিয়ে স্কোর বোর্ডে ১১১ রান যোগ করেন।

Source: Hindustan Times

সাকিবের আউটের পর ক্রিসে লিট দাস ব্যাট করতে আসেন এবং তিনিও সাকিবের দেখানো পথেই পা বাড়ান। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের উপর এই আক্রমণাত্মক খেলা বাংলাদেশকে প্রহম সেশনের ২৫ ওভারের খেলায় ১২৫ রান করতে সহয়তা করে।

লিটন দাসও সাকিব আল হাসানের মত অর্ধ-শতককে আর শতকে পরিণত করতে পারে নি। ঠিক লাঞ্চ বিরতির কিছুক্ষণ পরেই সে ৬২ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে ক্রিসে একা ফেলে বিদায় নেয়।

এর সাথেই বাংলাদেশের ৩৯৩ রানে সপ্তম উইকেটের পতন ঘটে। এরপর অবশ্য মিরজও ক্রিসে থিতো হতে পারে নি। এমন এক বেসামাল পরিস্থিতে তাইজুল ইসলামকে সাথে নিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৫৪ রানের জুটি গড়ে তোলে যা বাংলাদেশকে আরো একটি বড় স্কোর গড়ার স্বপ্ন দেখায়। ইতোমধ্যে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ তার ক্যারিয়ারের ৩য় শতক তুলে নেয়।

Source: Cricket Country

যা-ই হোক, বাংলাদেশ সব উইকেটের বিনিময়ে ৫০৮ রান তুলতে সমর্থ হয়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ শুরুতা ভাল করতে পারে নি। বাংলাদেশের হয়ে সাকিব আল হাসান প্রথম ব্রেক-থ্রু এনে দেন। এরপর তারা ২৯ রানের মধ্যেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে। সাকিব আল হাসান ২টি এবং মিরাজ বাকি ৩টি উইকেট লাভ করে।

Source: Cricket Country

শেষ খবরঃ হেট্মায়ার এবং ডোরিচ এখনও অপরাজিত আছে এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের টোটাল সংগ্রহ ৭৫/৫।

, ,