বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ২০১৮ঃ বাংলাদেশ কি পারবে সেমিতে শক্তিশালী ফিলিস্তিনকে আটকাতে?

 ইতোমধ্যেই বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল ২০১৮ এর প্রথম ফাইনালিস্ট নির্ধারণ হয়ে গেছে। প্রথম সেমিতে তাজিকিস্তান ফিলিপাইনকে ২-০ গোলে হারিয়ে জায়গা করে নিয়েছে ফাইনালে। এখন দ্বিতীয় ফাইনালিস্টের অপেক্ষা। অবশ্য কাগজে কলমে এখানে অপেক্ষার কিছু নেই, কারন ফিফা র‍্যাংকিং এ ১৯৪ তে থাকা বাংলাদেশের সাথে ১০০ তে থাকা ফিলিস্তিনের লড়াইটা অনেকটা অসম ই বলা যায়।

কক্সবাজারের বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামে বুধবার দুপুর আড়াইটায় র‌্যাংকিংয়ের ১০০ নম্বরে থাকা ফিলিস্তিনের মুখোমুখি হবে স্বাগতিকরা। এই ম্যাচকে সামনে রেখে শেষ বারের মত নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ২০১৮ঃ বাংলাদেশ কি পারবে সেমিতে শক্তিশালী ফিলিস্তিনকে আটকাতে?
Image Source: Dhaka Tribune

তবে বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে মূলত গুরুত্ব পেয়েছে রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা। আর গোলকিপার আশরাফুল রানাকে দেখা গেছে বেশ কসরত করতে। এ দু’টি বিভাগেই জোর দেয়া হয়েছে অনুশীলনে। ফিলিস্তিনের বিপক্ষে নিজেদের রক্ষণভাগ আগলে রাখাটাকেই এখন বড় চ্যালেঞ্জ মনে করছে স্বাগতিকরা। প্রতিপক্ষের দীর্ঘ দেহী ফরোয়ার্ডদের আক্রমণগুলো নসাৎ করে দিতে চান তপু বর্মন, টুটুল হোসেন বাদশা, সৌনি রাখাইনরা।

বাংলাদেশ দল বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ এর  চলতি আসরের শুরু থেকেই আক্রমণভাগে দুজন খেলোয়াড় খেলিয়ে এসেছে। এই ম্যাচেও এর ব্যাতিক্রম কিছু হবে না বলেই মনে হচ্ছে। এ বিষয়ে  স্বাগতিক দলের ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু, ফিলিস্তিনের বিপক্ষে আমাদের কৌশলে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে। আজ অনুশীলনে রক্ষণের উপরই বেশী জোর দেয়া হয়েছে। তবে কৌশল ঠিক হবে ম্যাচের দিন, ম্যাচের আগের দিন  অনুশীলন শেষে হেড কোচ পুরো বিষয়টা জানাবেন ফুটবলারদের। ‘

তবে দলের ফরমেশন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটা কোচের বিষয়। কোন ফরমেশনে দল খেলবে সেটা আগামীকালই হয়তো অনুশীলন শেষে জানতে পারবে সবাই। আর ফিলিস্তিন আমাদের চেয়ে অনেক শক্তিশালী একটা দল। কিন্তু ফুটবলটা ৯০ মিনিটের খেলা। বুধবার দুপুরে যারা গোল পাবে তারাই জিতবে। আমাদের লক্ষ্য প্রতিপক্ষ দলকে থামিয়ে রাখা এবং গোল আদায় করে নেওয়া।”

এদিকে বর্তমান জাতীয় দলে রয়েছেন কক্সবাজারের চার চারজন ফুটবলার। এরা হলেন ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজ, ইব্রাহীম, ডিফেন্ডার সুশান্ত ত্রিপুরা ও গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকু।

হোম ভেন্যুতে খেলায় আলাদা কোন চাপ থাকবে কী না- এমন প্রশ্নের জবাবে সবুজ বলেন, ‘এটি আমার ঘরের মাঠ। এখানে চাপের কোন বিষয় নয়। বরং এটা আমার জন্য আরো ভালো খেলার প্রেরণা। কারন নিজের পরিবারের সবাই আসবে মাঠে। আমার লক্ষ্য থাকবে গোল করা। কিন্তু দল যদি জয় পায় আর আমি গোল নাও করতে পারি, তবুও কোন আফসোস থাকবে না। ‘

দলের আরেক ফরোয়ার্ড লোকাল বয় ইব্রাহীম জানান, ‘আমি নিজের মাঠে খেলতে উদগ্রীব হয়ে আছি। যদি একাদশে সুযোগ পাই, তাহলে অবশ্যই গোলের চেষ্টা থাকবে। আমার লক্ষ্য জয় নিয়ে ঢাকায় ফেরা। ‘

এদিকে শক্তিমত্তায় নিজেরা অনেক এগিয়ে থাকলেও স্বাগতিকদের বেশ সমীহ করছেন ফিলিস্তিনের কোচ আইলাদ আলী নুরুদ্দিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন , ‘তারা বেশ শক্তিশালী। স্ট্রেংথও অনেক ভালো। এখানকার পরিস্থিতি অনুযায়ী ম্যাচের দিন আমি আমার দল সাজাব এবং জয়ের জন্যই মাঠে নামব। সেভাবেই আমরা প্রস্তুত হয়ে এসেছি। ‘ অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, ‘মাঠে নামার পর বাংলাদেশের খেলা দেখে আমাদের রণকৌশল সাজাব। ‘

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ২০১৮ঃ বাংলাদেশ কি পারবে সেমিতে শক্তিশালী ফিলিস্তিনকে আটকাতে?
Image Source: www.bff.com.bd

তবে দুই দলের নিজেদের শেষ ৫ ম্যাচের পরিসংখ্যানে স্বাগতিকদের কিছুটা এগিয়ে রাখা যায়। শেষ ৫ ম্যাচে ২ হারের বিপরীতে ৩ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ আর ২ হার আর এক ড্র এর বিপরীতে ২ জয় পেয়েছে ফিলিস্তিন। আর অচেনা প্রতিপক্ষ হিসেবে ফিলিস্তিনকে চমকে দেওয়ার কিছুটা সুযোগও রয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশের সামনে।

তবে শক্তিমত্তা আর র‍্যাংকিং এর পার্থক্য যাই বলুক না কেন, খেলাটা যখন ফুটবল তখন সেখানে একটা কিন্তু তো থেকেই যায়। এদিকে ইংলিশ কোচ জেমি ডে এর হাত ধরে অনেক দিন পর বাংলাদেশের ফুটবলে কিছুটা সুখের হাওয়া বইছে। আর এই সুখের হাওয়া আরেকটু গতি সম্পন্ন হয়ে ফিলিস্তিনির বিপক্ষে কিছুটা ঝোড়ো বাতাসে পরিনত হবে এমনটাই আশা বাংলার ফুটবল প্রেমীদের।

, , , , , , , , , , , , , , ,