নারী এশিয়া কাপ টি২০: টাইগারদের ব্যর্থতার বৃত্ত ভেঙে চ্যাম্পিয়ন বাংলার মেয়েরা

নারী এশিয়া কাপ টি২০
Source: sports.ndtv.com

আজকের আগ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল মানেই বাংলাদেশের কাছে ছিল চোখের জল আর আফসোসের গল্প। আর সেটাও আবার এই এশিয়া কাপের ফাইনালকে ঘিরেই। দুই দুই বার এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেও ব্যর্থ হওয়া টাইগারদের আক্ষেপ ঘুচিয়ে দেশকে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা এনে দিলো বাংলার টাইগ্রেসরা। নারীদের ক্রিকেটে এশিয়ার জায়ান্ট ভারতকে শ্বাসরুদ্ধকর এক ফাইনালে ৩ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সালমা-রুমানারা।

যেই কুয়ালালামপুর থেকেই ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রেখেছিল বাংলাদেশ, সেই কুয়ালালামপুর থেকেই মেয়েরা দেশকে প্রথম আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা এনে দিলো। যদিও দ্বিপক্ষীয় সিরিজের শিরোপার স্বাদ নারী পুরুষ উভয় দলই পেয়েছে, তবে বহুজাতিক টুর্নামেন্টে এটাই বাংলাদেশের প্রথম শিরোপা।

বাংলাদেশ যে এই এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেতে পারে তা শুরুতে কেউ কল্পনাও করতে পারে নি। কেনই বা করবে? এর আগে যে কোন দিন ফাইনালেই খেলতে পারেনি সালমা-রুমানারা। আর তাঁদের টুর্নামেন্টের শুরুটাও হয়েছিল শ্রীলংকার সাথে যাচ্ছেতাই ভাবে হেরে। কিন্তু সেই বাংলাদেশই পরবর্তীতে টানা ৬ ম্যাচ জিতে অপ্রতিরোধ্য ভাবে শিরোপা জিতে নিলো।

নারীদের এশিয়া কাপের আয়োজনই যেন করা হয় ভারতের হাতে শিরোপা তুলে দেওয়ার জন্যে। সেই ২০০৪ সাল এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৭ টি আসরের প্রথম ৬ টির চ্যাম্পিয়নই ভারতের মেয়েরা। কিন্তু সেই ভারতকেই এবারের আসরে গ্রুপ পর্যায়ে একবার হারিয়ে ‘অঘটনই’ ঘটিয়ে ফেলেছিল বাংলার কন্যারা। তবে সেটা যে নিছকই কোন অঘটন ছিল না সেটা ফাইনালে খুব ভাল ভাবেই প্রমান করেছে বাংলার মেয়েরা।

নারী এশিয়া কাপ টি২০
Source: Hindustan Times

এদিন নিজেদের প্রথম ফাইনালে টচ জিতে আগে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সালমা খাতুন। আর বোলাররাও শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে তাঁর এই সিদ্ধান্তকে যাথাযথই প্রমাণ করতে থাকেন। ভারতের ইনিংসের  প্রথম ধ্বসের শুরু হয় ৪র্থ ওভারে দলীয় ১০ রানে স্মৃতি মান্ধানার রান আউটের মাধ্যমে। এরপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত।

অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর এক পাশ আগলে রেখে দলকে বড় সংগ্রহ এনে দিতে চেষ্টা করেন, তবে বাংলাদেশের বোলাররা বাকি কোন ব্যাটারকেই তাঁর সঙ্গী হিসেবে বেশিক্ষন ক্রিজে থাকতে দেয় নি। তাঁর ৫৬ রানের ইনিংসে ৯ উইকেটে ১১২ রানের পুঁজি পায় ভারত। আর বল হাতে ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট নেনে রুমানা আহমেদ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালই করে বাংলাদেশ। শামীমা আর আয়শার উদ্বোধনী জুটিতে ৩৫ রান তুলে ফেলে তাঁরা। এই দুই ব্যাটারের বিদায়ের পর বল আর রানের পার্থক্যটা সামলেই খেলতে থাকে বাংলাদেশ। দলের পঞ্চম ব্যাটার হিসেবে যখন ফাহিমা খাতুন আউট হন তখন জয়ের জন্যে প্রয়োজন ১৫ বলে ১৭ রান। শেষ ওভারে সেই সমীকরনটাই এসে দাঁড়ায় ৬ বলে ৯ রান।

নারী এশিয়া কাপ টি২০
Source: United News Bangladesh

খুব পরিচিত এক সমীকরণ, তাই না? সেই ২০১২ সালের এশিয়া কাপ ফাইনালেও এই একই সমীকরণ পূরন করতে ব্যর্থ হয়েছিল মুশফিক-সাকিবরা। আর এই কদিন আগেও এই একই সমীকরণ পূরন করতে ব্যর্থ হয়ে আফগানদের কাছে ধবলধোলাইও হয়েছে টাইগাররা। তবে আজ আর সেই ব্যর্থতার গল্পের পুনরাবৃত্তি হতে দেয় নি টাইগ্রেসরা।

শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে যখন চমৎকার এক ইনসাইড আউট কাভার ড্রাইভ খেলে চার মারেন রুমানা আহমেদ তখন সমীকরনটা এসে দাঁড়ায় ৪ বলে ৪ রান। কিন্তু এর পরেই শুরু হয় চড়ম নাটকীয়তা। পরের বলে রুমানা সিঙ্গেল নেয়ায় ৩ বলে দরকার হয় ৩ রানের।

তখনই স্ট্রাইকে থাকা সানজিদা লং অনের উপর দিয়ে ছক্কা মারতে গিয়ে সীমানায় তালুবন্দি হন। আর ৫ম বলে লং অনে বল পাঠিয়ে এক অসম্ভব ডাবল নেয়ার চেষ্টা করতে গিয়ে রান আউট হয়ে যান সেট ব্যাটার রুমানা।

শেষ বলে ২ রানের সমীকরণ এসে দাঁড়ায় স্ট্রাইকে থাকা জাহানারার সামনে। ডাউন দ্যা উইকেট গিয়ে ব্যাট হাকান নতুন ব্যাটার জাহানারা আলম, বল চলে যায় ডিপ মিড উইকেট আর লং অনের মাঝামাঝি যায়গায়। লং অনের ফিল্ডার বল ফেরত পাঠাতে পাঠাতেই দৌড়ে ২ রান পূরণ করেই বাংলাদেশের শিরোপা নিশ্চিত করে ফেলেন ক্রিজে থাকা জাহানারা আর সালমা খাতুন।আর ব্যাটে বলে সমান ভাবে এই ঐতিহাসিক বিজয়ের কারিগর হিসেবে প্লেয়ার অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন রুমানা আহমেদ।

নারী এশিয়া কাপ টি২০
Source: RapidLeaks

এই বিজয়ের সাথে পুরো জাতিই বিজয়ের উৎসবে মেতে ওঠে। আর সালমা-রুমানাদের এই বিজয়ের মূহুর্তে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রস্তুতির ক্যাম্পে থাকা মাশরাফি-তামিমদের বুনো উল্লাশটাও ছিল ফ্রেমে বাঁধিয়ে রাখার মত এক দৃশ্য। এমন দৃশ্য যেন বারবার ফিরে আসে দেশের ক্রিকেটে।

, , , , , , , , ,

20 thoughts on “নারী এশিয়া কাপ টি২০: টাইগারদের ব্যর্থতার বৃত্ত ভেঙে চ্যাম্পিয়ন বাংলার মেয়েরা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।