ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেটঃ নাটকীয়তার অপেক্ষায় লিগের শেষ রাউন্ড

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেটদেশের ক্লাব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর ঢাকা প্রিমিয়াম ডিভিশন ক্রিকেট লিগের এবারের আসর প্রায় শেষ হতে চললো। ফ্রাঞ্চাইজি টি২০ টুর্নামেন্ট বিপিএল এর জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্যেও ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট তার চেনা রঙের অনেকাটাই ধরে রেখেছে এই আসরে। অনেক চড়াই উতরাই পার হয়ে শেষ রাউন্ড পর্যন্ত শিরোপালড়াইটা তিন দলের মধ্যে এখনো জারি আছে।

তিন দলের মধ্যে বিশেষ করে মাশরাফির আবাহনীর নামটাই বলতে হবে। ১৫ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে শিরোপার সবচেয়ে বড় দাবিদার তাঁরাই। লিগ শুরুর আগে দলবদলের বাজারে বিশেষ ব্যবস্থায় মাশরাফিকে শাইনপুকুর থেকে দলে ভেরায় আবাহনী। তাদের এই বিশেষ ব্যবস্থার কারনে দলও যে বিশেষ কিছুই পেয়েছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। অধিনায়ক মাশরাফি যে অদ্বিতীয় তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু বোলার মাশরাফি দলকে যে এমন অভাবনীয় সাফল্য এনে দেবেন তা ক্লাবকর্তারাও হয়তো আশা করেন নি।

মাশরাফির সৌজন্যে লিগের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির রেকর্ডটা ইতিমধ্যেই নতুন করে লিখতে হয়েছে। এক ম্যাচ বাকি রেখেই ১৫ ম্যাচে ৩৮ উইকেট নিয়ে তানভীর হায়দারের ৩৫ উইকেটের রেকর্ডকে দ্বিতীয় তে নিয়ে গেছেন। এই যাত্রায় তিনি অগ্রণী ব্যাংকের বিপক্ষে লিস্ট এ ক্রিকেটে অনন্য রেকর্ড ডাবল হ্যাট্রিকও করেছেন। সত্যিই ৩৬ বছরের এই তরুণ মাশরাফি সারা ক্রিকেট দুনিয়ার জন্যেই বিশেষ কিছু।

এক সাংবাদিকের “এই বয়সে…”  এই টুকু শোনার পরই মুচকি হেসে বলেন “বয়স তো  অভিজ্ঞাতা বাড়ায়। এই যেমন ধরুন, আমার সবকিছু সামলানোর ক্ষমতা আগের চেয়ে এখন অনেক বেশি। এটা মাঠের বাইরের ক্ষেত্রেও।”

এদিকে শেষ রাউন্ডের আগে লিজেন্ড অফ রুপগঞ্জ আর শেখ জামাল দু দলের পয়েন্টই ২০। নীট রান রেট এই দুই দলের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। দুই দলই তাঁদের শেষ ম্যাচে জয় পেলেও তেমন একটা খুশি হতে পারে নি। কারন এদিন মিরপুরে আবাহনীও তাঁদের ম্যাচে খেলাঘরকে উড়িয়ে দিয়ে শেষ রাউন্ডের নাটকীয়তার পরিমানটা একটু কমিয়েই রেখেছে।

Source: sportszone24.com

আবাহনী-খেলাঘর ম্যাচের শুরুটা বেশ ভালই করেছিল আবাহনী। ১৬ ওভারে ১ উইকেটে ১০০ রান তোলার পরে পরবর্তি ৫৭ রানেই হারায় ৭ উইকেট। কিন্তু শেষ দিকে মেহাদী মিরাজের ৪৪ বলে ৫০ রানের ইনিংস তাঁকে শুধু ম্যাচ সেরার পুরস্কারই এনে দেয় নি দলকে দিয়েছে লড়াই করার মত ২৪১ রানের পুঁজি। জবাবে এবারের চমক ভারতীয় অশোক মেনারিয়া বিহীন খেলাঘরের ইনিংস ১১৪ রানেই গুটিয়ে যায়। ১২৭ রানের বিশাল জয় আর নীট রান রেটের ব্যবধানটা আরেকটু বাড়িয়ে নিয়ে মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

ফতুল্লায় গাজী গ্রুপের বিপক্ষে বিশাল জয়ের মানসিক প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নেমেছল লিজেন্ড অফ রুপগঞ্জ। গাজী গ্রুপকে মাত্র ১৫২ রানে আটকে দিয়ে রান তাড়া করতে নেমে রুপগঞ্জের লিজেন্ডরা ২২.৫ ওভারেই মাত্র ২ হারিয়ে লক্ষে পৌঁছে যায়। এই ম্যাচের পাওয়া বাড়তি নীট রান রেট শেষ রাউন্ডে প্রভাব ফেলতেও পারে।

Source: Bangladesh Cricket Board

তবে বিকেএসপি তে শেখ জামাল আর প্রাইম দেলেশ্বরের লো স্কোরিং ম্যাচটা দেশের ক্রিকেট মহলে কিছুটা সন্দেহের আঙ্গুল তুলেছে। এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শেখ জামাল আগে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১৮৪ রানেই থেমে যায়। জবাবে ব্যাট করতে নামা দেলেশ্বর এক পর্যায়ে ২ উইকেটে ৭০ রান তুলে ফেলে, কিন্তু পরবর্তি ৩৬ রানেই তাঁরা ৭ উইকেট হারায়। এই উইকেট গুলোর দৃষ্টিকটু পতনই সবার মনে প্রশ্ন জাগায়। কে জানে? হয়তো ক্রিকেটের অনিশ্চয়তারই একটা ঊদাহরণ এটা। যাই হোক, ১০ রানের জয় নিয়ে শেখ জামালও শেষ রাউন্ডটা আকর্ষনীয়ই করে রাখলো।

এখন ৫ তারিখের শেষ রাউন্ডে এই তিন দলকে শুধু নিজের ম্যাচে জিতলেই হবে না, সাথে দৃষ্টি রাখতে হবে অন্যদের খেলায়ও। আবাহনী-রুপগঞ্জের অঘোষিত ফাইনালে আবাহনী হারলেও চ্যাম্পিয়ন হবে যদি না বিশাল ব্যবধানে হারে। ম্যাচ পরিত্যাক্ত হলেও আবাহনীর কোন ক্ষতি নেই। আর শেখ জামাল খেলাঘরকে হারালে রুপগঞ্জের সেক্ষেত্রে কোন সুযোগই নেই। কিন্তু শেখ জামাল হারলে নিজেদের ম্যাচে আবাহনীকে বিশাল ব্যবধানে হারাতেই হবে রুপগঞ্জের।

এখন শুধু এটা দেখারই অপেক্ষা যে প্রিমিয়ার লিগের শেষ রাউন্ড দেশীয় ক্রিকেটকে আসলে কতটা নাটকীয়তা উপহার দিতে পারে।

, , , , , , , , ,