এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ স্যালুট অদম্য যোদ্ধ তামিম আর ভালবাসা মুশফিক 

এশিয়া কাপ এ বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচের ইনিংসের ৪৭ তম ওভারের একটা দৃশ্য আজীবন ফ্রেমে বাধাঁনো থাকবে বাংলার ক্রিকেট প্রেমীদের হৃদয়ে। শুধু বাংলার কেন! যেকোন মানুষের মনেই দাগ কাটবে এই দৃশ্য। সে কি দৃশ্য, বাম হাতের আংগুল ভেঙে ম্যাচের তৃতীয় ওভারেই মাঠ থেকে বেড়িয়ে যাওয়া তামিম দলের প্রয়োজনে, দেশের প্রয়োজনে এক হাতেই ব্যাট করতে মাঠে নামছেন।

এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ স্যালুট অদম্য যোদ্ধ তামিম আর ভালবাসা মুশফিক 
Source: Bdcrictime

ক্রিকইনফো ওয়েব সাইটে লাইভ কমেন্ট্রিতে লেখা ভেসে উঠলো, ” Unbelievable crazy seen”! হ্যাঁ, এই অবিশ্বাস্য পাগলাটে দৃশ্যটিই মাঠে বাস্তবায়ন করেছেন বাংলার টাইগার তামিম ইকবাল।

অসম্ভব ভাললাগার মত এই ঘটনার সূত্রপাত হয় বাংলাদেশের ইনিংসের ৪৭ তম ওভারের ৫ম বলে দলের ৯ম ব্যাটসম্যান হিসেবে মোস্তাফিজুর রহমান রান আউট হয়ে গেলে। তখনো অন্য প্রান্তে ১১২ রানে অপরাজিত মুশফিক। ম্যাচের শুরুতেই লাকমালের বলে আঘাত পেয়ে আঙুল ভেঙে কব্জিতে ব্যান্ডেজ করা তামিমের মাঠে না নামাটা ততক্ষণে নিশ্চিত হয়ে গেছে। তাই এক প্রান্তে অনবদ্য এক সেঞ্চুরি করা মুশফিক থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশের ইনিংস থমে যাচ্ছিল ওই ২২৯ রানেই।

কিন্তু ড্রেসিং রুমে থাকা আহত বাঘ তামিমের মাথায় তখন ভিন্ন চিন্তা। তিনি ভাবলেন, একটা উইকেট হিসেবে অপর প্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকলেই তো মুশফিক আরো কয়েকটা বাড়তি রান পেলেও পেতে পারেন, দলে পূঁজিটাও বাড়তে পারে খানিকটা। যেই ভাবা সেই কাজ। দলের প্রয়োজনে নেমে পড়লেন মাঠে। এক হাতে ব্যাট, আরেক হাতে গ্লাভস ছিড়ে বেড় করে রাখা ব্যান্ডেজ করা হাত। আর সামনে সেই লাকমাল, যার বলের আঘাতেই আঙ্গুল ভেঙে শেষ হয়ে গেছে এশিয়া কাপ।

যাই হোক, মুশফিককে রান করার সুযোগ করে দিতে হলে এক হাতেই ঠেকাতে হবে লাকমালের ওভারের শেষ বলটি, আর লাকমালও তামিমের ভাঙা বাম হাত বরারব বাউন্সার ছাড়লেন। কিন্তু যার মনে আছে অদম্য সাহস আর দলের প্রতি অসম্ভব ডেডিকেশন, সেই তামিমের কাছে এই বাউন্সার কোন বিষয় হতে পারে নাকি! তাই এক হাত দিয়েই সেই বাউন্সার ঠেকিয়ে দিয়ে পরের ওভারে স্ট্রাইকটা ফিরয়ে দেন অন্যপ্রান্তে দাড়িয়ে থাকা সেঞ্চুরিয়ান মুশফিককে।

 

দ্বিতীয় বার ব্যাট করতে নেমে তামিম বল খেলেছেন ঐ একটাই। কিন্তু এই এক বলের রানহীন ইনিংস টাই যে বাংলাদেশের জন্যে কত বিশাল আর মহৎ এক উদাহরণ তা কোন স্কোরকার্ডের পক্ষে বলে বোঝানো সম্ভব নয়।

এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ স্যালুট অদম্য যোদ্ধ তামিম আর ভালবাসা মুশফিক 
Source: Prothom Alo

তামিম মাঠে ফিরে আসার আগে ক্লান্ত আর পরিশ্রান্ত মুশফিককে দেখে মনে হচ্ছিল নিজের শক্তির আর সামান্যটুকুও বাকি নেই তাঁর। দুবাই এর অসহ্য গরমে এত লম্বা সময় ব্যাট করে মুশফিকের শরীর তখন বিধ্বস্ত। কিন্তু আহত বাঘ  তামিমকে আবারো মাঠে নামতে দেখে যেন প্রানশক্তি ফিরে পেলেন পরিশ্রান্ত বাঘ মুশফিক।

তামিমকে ক্রিজের অন্য প্রান্তে রেখে লঙ্কান বোলারদের উপর নতুন প্রাণ শক্তিতে ঝাপিয়ে পড়লেন তিনি। শেষ তিন ওভারে মুশফিকের মারা চার আর ছক্কা গুলো যেন মনে হচ্ছিল তামিমের সন্মানে আছড়ে পড়ছে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে।

তামিম-মুশফিক জুটির ১৬ বলে আসে ৩২ রান। যেই রানের সবটাই মুশফিকের। আর এই জুটির মহামূল্যবান ৩২ রানেই দল পায় ২৬১ রানের লড়াই করার মত এক পূঁজি। আর এই পূঁজির পাশাপাশি অদম্য এক মনোবলও সঙ্গী হয় বাংলাদেশের। মুশফিক যখন ইনিংসের ৩ বল বাকি থাকতে আউট হন তখন তাঁর নামের পাশে ১৪৪ রানের এক ঝাঁ চকচকে এক অসাধারণ সেঞ্চুরি। এই মহাকব্যিক সেঞ্চুরির কারনে শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি সাঙ্গাকারাকে টপকে এশিয়া কাপের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস খেলা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান এখন তিনিই।

এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ স্যালুট অদম্য যোদ্ধ তামিম আর ভালবাসা মুশফিক 
Source: Scroll.in

তামিম এর আগেও আহত অবস্থায় দলের প্রয়োজনে ক্রিকেট মাঠে নামার উদাহরণ আছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্টে হার এড়াতে ব্যান্ডেজ করা হাত নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন দক্ষিন আফ্রিকার গ্রায়েম স্মিথ আর ওয়ানডে তে বাংলাদেশের বিপক্ষে হার এড়াতে ব্যান্ডেজ করা পা নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন ইংল্যান্ডের ইয়ান বেল। তবে এক্ষেত্রে ব্যাতিক্রম উদাহরণ তামিম, কারন তাঁর এই বীরত্বগাঁথা দলের জয়েও রেখেছে অনন্য ভূমিকা।

ইঞ্জুরিতে তামিমের এশিয়া কাপ শেষ হয়ে গেলেও মাত্র এক বলের জন্যে মাঠে নেমে  এশিয়া কাপ ২০১৮ এত সেরা দৃশ্যটি রেখে গেলেন তামিম। স্যালুট অদম্য যোদ্ধা তামিম আর অজস্র ভালবাসা।

, , , , , , , , , , , , , , , , , ,

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।