এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ এখনও তামিম ইকবালের দুবাইয়ের ভিসা জটিলতা কাটেনি

বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দুবাই গেছেন তামিম ইকবাল। তার তো ১০ থেকে ১২ বার হবেই। কখনো দুবাই প্রবাসী খালার বাসায় বেড়াতে আবার কখনো বন্ধুবান্ধব পরিবার নিয়ে ঘুরতে কখনোবা পিএসএলে খেলতে। আর তামিমের মনে কাল সন্ধ্যা পর্যন্ত গুঞ্জরিত হচ্ছিল ভিসা পাবে তো প্রশ্নটা।

এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ দুবাইয়ের ভিসা জটিলতা কাটেনি এখনও তামিমের
Source: CricTracker.com

সন্ধ্যা সাতটায় জানা গেল তামিল ভিসা পেয়েছেন। রাত একটা ফ্লাইটের টিকিট বুকিং করা হয়েছে। কিন্তু পরে জানা গেল সেই ভিসা ত্রুটিযুক্ত। ভিসায় নেই তামিমের বাবার নাম। সবচেয়ে বড় কথা তামিমকে ভিসা দেওয়া হয়েছে তার পুরনো পাসপোর্ট নম্বর উল্লেখ করে। বিসিবি যদিও তাকে আশ্বস্ত করেছে এ ভিসা নিয়ে গেলেও সমস্যা হবে না। কিন্তু তামিম তাতে রাজি হচ্ছেন না। দুবাই বিমানবন্দরে অনেক কড়াকড়ি। সে জন্য কোন ঝুঁকি নিতে চাচ্ছেন না তামিম ইকবাল।

রাতেই তামিম দুবাই জাবেন কিনা সেটা তখন পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কাল সারা দিনেও মিরপুরে বেশ কয়েকবার তার কণ্ঠে শোনা গেছে হতাশা মাখানো প্রশ্ন। আচ্ছা আমাকে যদি শেষ পর্যন্ত ভিসা দেওয়া না হয় তাহলে কি হবে? প্রথমে নেট থেকে ব্যাটিং অনুশীলন করে এসে অন্তত দুইবার মিডিয়া লাউঞ্জে তার মুখ থেকে এমন কথা শোনা যায়।

তামিমের হতাশার শুরু বাংলাদেশ দল যেদিন এশিয়া কাপ খেলতে দুবাইয়ে গেল সেদিন থেকেই। দলের সঙ্গে গেলে ওখানকার জল-হাওয়ায় কয়েকটা দিন অনুশীলনের সুযোগ পাওয়া যেত। কিন্তু এখন সেটি অনিশ্চিত তামিমের সেই হতাশা আরো বেড়ে গেলো যখন জানা গেল আগের রাতে রুবেল হোসেনেরও ভিসা হয়ে গেছে। ভিসা হয়ে গেছে দলের মেসিওরেরও। গতকাল সন্ধ্যায় তাকে নিয়ে দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হন রুবেল।

রাতে দুবাই গিয়ে না থাকলে আজ ঢাকায় বিরক্তিকর অপেক্ষায় দিন পার করতে হতে পারে তামিমকে। অপেক্ষা টা কেমন কাল সন্ধায় মুঠোফোনে নিজেই বলেছিলেন তা, প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর সন্ধ্যা পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকি এই বুঝি কোন খবর এলো। অন্য কোনো কাজই করতে পারছি না, এরকম স্ট্যান্ডবাই পরিস্থিতিতে থাকা খুবই বিরক্তিকর।

প্রস্তুতির ঘাটতি থেকে যাওয়াটা আরো বড় সমস্যা, সেটা কি রকম তামিমের মুখ থেকে তার একটি ধারণা পাওয়া যায় তিনি বলেন ম্যাচ বা টুর্নামেন্ট এর আগে ব্যক্তিগত ভাবে আমি যেভাবে প্রস্তুতি নেই সেটা এবার হচ্ছে না। ভাগ্যটা তামিমের খারাপই বলতে হবে নইলে এত বছর পরও কেন দুবাইয়ের ভিসা নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হবে তাকে। সর্বশেষ এ বছরের শুরুতে পিএসএল খেলতে গিয়ে ভিসার জন্য জটিলতার সম্মুখীন হতে হয়েছে তামিমকে।

এশিয়া কাপ ২০১৮ঃ দুবাইয়ের ভিসা জটিলতা কাটেনি এখনও তামিমেরSource: The Daily Star

তখন ঠিক কি সমস্যা ছিল তা জানা না গেলেও এবারের সমস্যা সম্পর্কে কিছুটা ধারণা পাওয়া গেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভিসার জন্য বিসিবি সব খেলোয়াড় এবং কর্মকর্তার পাসপোর্ট এর স্ক্যান কপিসহ অন্যান্য বৃত্তান্ত এশিয়া কাপের সংশ্লিষ্ট ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানকে পাঠায়। কিন্তু ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান থেকে বিসিবিকে জানানো হয় কিছু পাসপোর্টের তথ্য নতুন করে পাঠাতে।

আর সেই দলে তামিমও ছিলেন। পরবর্তীতে নতুন করে তথ্য পাঠানো হলে সবার ভিসা চলে আসলেও তামিমের ভিসা আসছিল না। এই সমস্যার সাথে যুক্ত হয়েছে ভিসায় পুরোনো পাসপোর্ট নাম্বার দেওয়াটা।

ম্যানেজার খালেদ মাহমুদের ভিসা আসেনি এখন পর্যন্ত, যদিও তার বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে একটু দেরি করে।

, , , , , , , , , , , , , , , ,