ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপঃ টাইব্রেকার এ ২৬ শট!! যেন নাটকের মত

প্রতিশোধ, ১৪ বছর পরে। ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপ এ এসি মিলান বনাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর একটি নাটকীয় টাই ব্রেকার ম্যাচ।  এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড টাই ব্রেকার এ ম্যাচটি ৯-৮ গোলে জয়লাভ করে।

এটা ছিল রেড ডেভিলস দের প্রথম ম্যাচ এবং তারা জয়লাভ দিয়ে তা শুরু করে। নাটকীয়  টাই ব্রেকার এর জন্য বিশেষ একটি ম্যাচ।

এসি মিলান এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর জন্য এটাই যে প্রথম দীর্ঘ টাই টাই ব্রেকার ম্যাচ ছিল তা নয়। ১৪ বছর আগে, তারা ঠিক একই স্কোর শিট তৈরি করেছিল।

কিন্তু তখন বিজয়ি টিম ছিল এসি মিলান এবং ঠিক তেমনি এই বারে বিজয়ি টিম হলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

আসলে যখন খেলাটি শুরু হয়েছিল কেউ কল্পনা করতে পারছিল না যে তাদের জন্য কি অপেক্ষা করছে। ম্যাচের ১২ মিনিট এর মাথায় প্রথম গোলটি করেন এ.সানচেজ।

সূত্রঃ ঢাকা ট্রিবিউন

জে.মাটা, এ.সানচেজ কে একটি গ্রেট পাস দেয় এবং এ, সানচেজ খুন ভাল ভাবে সেটা শেষ করে। তিন মিনিট পরে মিলান গোলটি ফিরিয়ে দেয়।এই গোলটিও খুব চমৎকার গোল ছিলো।

এই সময়ে বোনাক্কি মিডফিল্ড থেকে বল পাস করে এবং সুসো তা ভালভাবেই শেষ করে। এবং এটাই ছিল ৯০ মিনিট এর খেলা।

১৫ মিনিট পরে কেউ স্কোর করতে পারে নি। কোন দলই একে অন্যের থেকে ভাল খেলতে পারে নি।মিলান এর শট ইউনাইটেড এর থেকে বেশি ছিল কিন্তু তাদের লক্ষ বরাবর শট গুলো ইউনাইটেড এর থেকে কম ছিল।

৯০ মিনিট পরে সকল নাটক শুরু হলো। ইউনাইটেড টাই ব্রেকার শুরু করে এবং তারা ৩ টি গোল করতে সক্ষম হয় আর ৩ টিতে ব্যর্থ হয়।

অন্যদিকে মিলান ও তাদের সুযোগ হাতছারা করে। এইভাবে, এক জন অন্য জন কে কিক করতে থাকে।

ইউনাইটেড এর গোললরক্ষক জোয়েল পেরেইরা একটি শট নেয় এবং সেটা মিস করে কিন্তু কিছু পেনাল্টি সেভ করে। প্রতি খেলোয়াড় কমপক্ষে একটি করে শট নেয়।কিছু খেলোয়ার নেয় ২ টি।

সূত্রঃ দ্যা পিপলস পারসন

অবশেষে কেসি তার ২য় শট টি নেয় এবং তাতে ব্যার্থ হয়।এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ম্যাচে জয়লাভ করে।

ম্যানচেএস্টার ইউনাইটেড এবং এসি মিলান উভয়েই তাদের পুরো স্কোয়াড ব্যবহার করেছে। আলাদা করে যখন দুই কোচ পেনাল্টি শুটআউট টি দেখে মজা করছিল তখন বেশ হাস্যকর লাগছিল।

আন্দ্রেয়া পেরিয়ার খুব ভাল খেলেছে। মরিনহোক তাকে চাইলে ঋণের জন্য তাকে না দিয়ে পরবর্তী সিজনের সুযোগ দিতে পারে। সানচেজ ভাল করেছে, তিনি নতুন সিজনের তার কর্মক্ষমতা চালিয়ে যেতে পারবে বলে আশা করা যায়।

সূত্রঃ গিভ মি স্পোর্ট

ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপ হল একটি প্রাগ টুর্নামেন্ট। প্রতিটি দল তাদের খেলোয়াড়দের সুযোগ দেয়।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ভাল দিয়েই শুরু করল। অন্যদিকে, এসি মিলান খারাপ ভাগ্যের সাথে শুরু করল।

যদিও তারা ভাল খেলেছে। তবে বলাই যায় এটি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জন্য একটি নিখুঁত প্রতিশোধ। প্রতিশোধ গ্রহণ ১৪ বছর পরে হলেও তো হলো। এবং খুব ভাল ম্যাচ টাই-ব্রেকার নাটকয়ে সমাপ্ত।

, , , , , , , , , , , , , , ,