ইউরোপের ঘরে যাচ্ছে বিশ্বকাপ শিরোপা

ফ্রান্স এবং বেলজিয়াম ফাইনালে তাদের স্থান ধরে রাখার জন্য আগামী ১০ ই জুলাই রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে  ৬৪২৮৭ আসন সংখ্যা বিশিষ্ট মাঠে একে অন্যের মুখোমুখি হবে। ফ্রান্স তার প্রতিপক্ষ উরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে সেমিফাইনালে তাদের স্থান দখল করে নেয়।

অন্যদিকে বেলজিয়াম কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলকে ২-১ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে ফ্রান্সের প্রতিপক্ষ হবার জন্য নিজেদের স্থান নিশ্চিত করে। ২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবল এর সেমিফাইনাল দল গুলো দেখে একটা জিনিস নিশ্চিন্তে বলা যায় এবার ইউরোপের ঘরেই শিরোপাটি যাচ্ছে।

Source: Youtube

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ ইতিহাসঃ

১৯৩০ সালে প্রথম বিশ্বকাপ ফুটবলে ইউরোপের যে চারটি দল অংশগ্রহণ করেছিল ফ্রান্স তার মধ্যে একটি। ফ্রান্স এখন পর্যন্ত ১৪বার ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপে অংশগ্রহণ করেছে। এরকম যতগুলো দেশফিফা ওয়ার্ল্ড কাপে  অংশগ্রহণ করেছে ফ্রান্স তারমধ্যে ষষ্ঠ।

ফ্রান্স ফুটবল দল এমন একটি দল যারা কিনা পৃথিবীর অন্য ৮টি দলের মত অন্তত একবার বিশ্বকাপ জিতেছে। ফ্রান্স ১৯৯৮ সালে তাদের প্রথম এবং একমাত্র বিশ্বকাপ শিরোপা অর্জন করে। সেবারের বিশ্বকাপের আসর বসে ছিল ফ্রান্সের মাটিতেই। ফাইনালে ফ্রান্স ব্রাজিলকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা অর্জন করে।

পরে ১৯৩৮ সালে ফ্রান্সে আবারো বিশ্বকাপের আসর বসে। সেবার ফ্রান্স বিশ্বকাপ আসরের দ্বিতীয় বারের চ্যাম্পিয়ন ইতালীর কাছে কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে মূল পর্বের খেলা থেকে বিদায় নেয়।

ফ্রান্স এরপরে ২০০৬ সালে আবারো ইতালির  কাছে ৫-৩ গোলের ব্যবধানে হেরে রানারআপ হয়। ফ্রান্স দুইবার ১৯৫৮ এবং ১৯৮৬ তে বিশ্বকাপ ফুটবলে তৃতীয় স্থান অধিকার করেএবং ১৯৮২ তে চতুর্থ স্থান অধিকার করে টুর্নামেন্ট শেষ করে।

Source: FIFA

বেলজিয়ামের বিশ্বকাপ ইতিহাসঃ

বেলজিয়াম এখন পর্যন্ত ফিফা বিশ্বকাপের এর মূল পর্বে মোট ১২ বার অংশগ্রহণ করেছে। ফ্রান্সের মত তাদের সূচনা হয় 1930 সালের ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ দিয়ে । সেবার তারা তাদের প্রতিযোগিতা শেষ করে ১২ তম স্থান দিয়ে। প্রথম ওয়ার্ল্ড কাপের ফাইনালে বেলজিয়ামের জন লাঙ্গিনাস রেফারির দায়িত্ব পালন করেন।

নেদারল্যান্ড বেলজিয়ামের ঐতিহ্য গতভাবে প্রতিপক্ষ। ফিফা বিশ্বকাপের সম্পূর্ণ ইতিহাসে এখন পর্যন্ত এই দুটি দেশ দুইবার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে। এর মধ্যে ১৯৯৪ সালে ইউএসএ-তে অনুষ্ঠিত ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপে বেলজিয়াম একবার জয় লাভ করে এবং ফ্রান্সে  অনুষ্ঠিত ১৯৯৮সালে একবার ড্র করে।

এখন পর্যন্ত যে দলটি বেলজিয়ামের সর্বাধিক প্রতিপক্ষ হিসেবে খেলেছে সেটি হচ্ছে রাশিয়া। বেলজিয়াম এবং রাশিয়া এখন পর্যন্ত পাঁচবার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে বেলজিয়াম জয়লাভ করেছে তিনবার এবং সোভিয়েত ইউনিয়ন জয়লাভ করেছে দুইবার।

১৯৮২ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত বেলজিয়াম এখন পর্যন্ত ৬ বার বিশ্বকাপ ফুটবলে কোয়ালিফাইং রাউন্ডে পৌঁছেছে। এইবার ২০১৮ বিশ্বকাপ দিয়ে একমাত্র স্পেন  তাদের এই রেকর্ড ভঙ্গ করতে সক্ষম হয়েছে। ১৯৮৬  সাল থেকে স্পেন এখন পর্যন্ত পরা পর নয়  বার ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপের মূল পর্বে অংশগ্রহণ করেছে।

অপরদিকে বেলজিয়াম দল এখন পর্যন্ত পাঁচবার দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেয়েছে।বেলজিয়াম যে পাঁচ বার দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেয়েছে তা ছিল ১৯৩০ থেকে ১৯৭০ সালের মধ্যে। কিন্তু এই পাঁচবারের কোনবাড়ই তারা শিরোপা অর্জন করতে পারেনি।

১৯৩০ সালের প্রথম ওয়ার্ল্ড কাপে বেলজিয়াম দুইবার গোলশূন্য ভাবে হেরে যায়। ১৯৩৪ সালে জার্মানির বিপক্ষে তারা প্রথম তাদের দু’টি গোল করতে সক্ষম হয়। ১৯৩৪ এবং ১৯৩৮ সালের বিশ্বকাপের মূল পর্বে এই রেড ডেভিলরা প্রথম পর্ব থেকে বাদ পড়ে যায়। ১৯৫৪ সালের বিশ্বকাপে তারা ইংল্যান্ডের সাথে ৪-৪ ব্যবধানে ড্র করে এবং ১৯৭০ সালে তারা প্রথম তাদের ওয়ার্ল্ডকাপের জয় অর্জন ।

Source: followyoursport

ছোট-বড় আন্তর্জাতিক সকল ম্যাচের হিসাব কষলে দেখা যায় ফ্রান্স এবং বেলজিয়াম এখন পর্যন্ত ৭৩ বার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে ফ্রান্স ২৪ বার বিজয়ী হয়েছ্‌ ১৯ বার খেলা ড্র হয়েছে, এবং ৩০ বার পরাজিত হয়েছে। অর্থাৎ ইতিহাস বলছে ফ্রান্স বেলজিয়াম এর কাছে অধিক বার পরাজিত হয়েছে।

যে দলটি ব্রাজিলকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল খুব সম্ভবত সেই দলটি সেমিফাইনালে ফ্রান্সের মুখোমুখি হবে যেখানে রয়েছেন নাসের চার্লি অ্যান্ড মেরুন ফেলানী। অন্যদিকে ফ্রান্স শিবিরও খুব বেশি একটা পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা নেই । তারাও খুব সম্ভবত উরুগুয়ের সাথে যে দলটি খেলেছিল সে দলটি সেমিফাইনালে বেলজিয়ামের মুখোমুখি হবে।

সেমিফাইনালের অপর খেলায় ইংল্যান্ড এবং ক্রোয়েশিয়া একে অন্যের মুখোমুখি হবে। এখন শুধু দেখার অপেক্ষাফুটবল খেলায় সর্বোচ্চ শিরোপাটি অর্জনের জন্য ইউরপের কোন দুটি দল ফাইনালে একে অন্যের মুখোমুখি হচ্ছে।

 

, , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,

33 thoughts on “ইউরোপের ঘরে যাচ্ছে বিশ্বকাপ শিরোপা

  1. In the great pattern of things you’ll get an A for effort and hard work. Where exactly you misplaced me was first in the specifics. You know, as the maxim goes, details make or break the argument.. And that couldn’t be much more accurate in this article. Having said that, permit me tell you what did work. Your text is certainly pretty engaging and this is most likely the reason why I am taking the effort in order to opine. I do not make it a regular habit of doing that. Next, despite the fact that I can notice a jumps in reasoning you come up with, I am not sure of just how you seem to unite your details which inturn make your conclusion. For now I will subscribe to your position but trust in the future you actually connect the facts much better.

  2. Howdy just wanted to give you a quick heads up. The words in your article
    seem to be running off the screen in Ie. I’m not sure if
    this is a format issue or something to do with
    web browser compatibility but I figured I’d post to let you know.
    The style and design look great though! Hope you get the issue fixed
    soon. Kudos

  3. Hello! I understand this is kind of off-topic but I needed to ask.
    Does building a well-established website like yours take a large amount of work?
    I am completely new to operating a blog but I do write in my diary on a daily basis.
    I’d like to start a blog so I can easily share my own experience
    and thoughts online. Please let me know if you have any ideas or tips for brand new aspiring blog owners.
    Thankyou!

  4. Undeniably imagine that which you stated. Your favourite reason seemed to be at the internet the easiest factor to be aware of. I say to you, I definitely get annoyed whilst other people think about issues that they plainly don’t realize about. You controlled to hit the nail upon the highest and outlined out the whole thing without having side-effects , other people could take a signal. Will likely be back to get more. Thank you

  5. Undeniably believe that which you stated. Your favorite justification appeared to be on the web the
    easiest thing to be aware of. I say to you, I definitely get annoyed
    while people think about worries that they plainly do not know about.
    You managed to hit the nail upon the top as well as defined out the whole
    thing without having side effect , people can take a signal.
    Will probably be back to get more. Thanks

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।