অ্যালিস্টার কুক, ভদ্রলোকের খেলার এক কিংবদন্তি ভদ্রলোক এর রাজসিক বিদায়।

সৃষ্টিকর্তা হয়তো অনেক যত্ন সহকারেই লিখে রেখেছিলেন অ্যালিস্টার কুক এর ক্যারিয়ারের চিত্রনাট্য। তা না হলে সপ্তাহ দুই আগেও যেই কুক ইংলিশদের কাছে ছিলেন নেতিবাচক আলোচনার বিষয়, তিনিই কিনা বিদায়ী টেস্টে করে গেলেন এক গাদা রেকর্ড!

ওভাল টেস্ট শুরুর আগে ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট চেয়েছিলেন নিজের শেষ টেস্টে যেন সেঞ্চুরি পান কুক। এই চাওয়া শুধু তাঁর একার ছিল না, ছিল ক্রিকেট দুনিয়ার লাখো ভক্তের। কেননা ভদ্রলোকের খেলা ক্রিকেটের কিংবদন্তি একজন ‘ভদ্রলোক’ এর এমন বিদায়ই তো ক্রিকেট ভক্তদের কাম্য হতে পারে। আর তাই সেই সেঞ্চুরি তো কুক করেছেন ই, তাঁর সাথে নতুন করে লিখতে বাধ্য করেছেন ক্রিকেটের অনেক গৌরবময় রেকর্ড।

অ্যালিস্টার কুক, ভদ্রলোকের খেলার এক কিংবদন্তি ভদ্রলোক এর রাজসিক বিদায়।
Source: Deccan Chronicle

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুটা হয়ে ছিল এই ভারতের বিপক্ষেই। ২০০৬ সালে নাগপুরে সেই অভিষেক টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে অনবদ্য এক সেঞ্চুরি দিয়েই ক্রিকেট বিশ্বকে নিজের আগমনী বার্তা দিয়েছিলেন তিনি। আর ১২ বছর পরে সেই ভারতের বিপক্ষে মহা কাব্যিক এক সেঞ্চুরি দিয়েই ইতি টানলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের।

আর এই সেঞ্চুরি দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের অনন্য এক অভিজাত তালিকায় স্থান করে নিলেন এই “শেফ” ডাকনামের এই আপদমস্তক ইংলিশ ভদ্রলোক। ক্যারিয়ারের প্রথম আর শেষ টেস্টে সেঞ্চুরি করা খেলোয়াড়ের সেই তালিকায় কুক এর আগে ছিলেন মাত্র ৪ জন। প্রথম ৩ জন হলেন অস্ট্রেলিয়ার রেজিন্যাল্ড ডাফ, বিল পন্সফোর্ড, গ্রেগ চ্যাপেল এবং ভারতের মোহাম্মদ আজাহারউদ্দিন।

এই তালিকা ছাড়াও কুক ক্রিকেটের অন্যতম বিরল এক তালিকায় ঠাই করে নিয়েছেন দ্বিতীয় ইনিংসে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেই। টেস্ট ক্রিকেটের ১৪১ বছরের ইতিহাসে ক্যারিয়ারের প্রথম আর শেষ টেস্টের চার ইনিংসেই পঞ্চাশোর্ধ্ব রান করার কীর্তি ছিল শুধু দক্ষিন আফ্রিকার ব্রুস মিচেল এর। দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে সেই তালিকায় নিজেকে ঠাঁই করে ব্রুসের একাকিত্ব ঘোচালেন কুক।

এছাড়াও শেষ টেস্টে আর ১৪৭ রান  করলেই শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি সাঙ্গাকারাকে পেছনে ফেলে টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান রান করা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান হওয়ার সুযোগ ছিল কুক এর সামনে। তবে তাঁর সাম্প্রতিক ফর্মের যে অবস্থা ছিল, তাতে এই রেকর্ডের ব্যাপারে সন্দিহান ছিলেন অনেকেই। কিন্তু সব জল্পনা কল্পনা দূর করে সেই রেকর্ডটও এখন নিজের করে নিয়েছেন কুক। শুধু বাঁহাতি কেন, ১২৪৭২ রান নিয়ে টেস্টে সবচেয়ে বেশি রান করা ব্যাটম্যানদের মধ্যে ৫ নাম্বারে উঠে এসেছেন তিনি।

এছাড়াও রেকর্ড বইয়ে কুক

★ অভিষেকের পর একটানা ১৫৯ টেস্ট খেলে টানা সবচেয়ে বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার রেকর্ড। দ্বিতীয় এলান বর্ডার (১৫৩ ম্যাচ)

★ টেস্টে ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান ১২৪৭৩। দ্বিতীয় গ্রাহাম গুচ (৮৯০০ রান)

★টেস্টে ওপেনার হিসেবে সবচেয়ে বেশি রান। দ্বিতীয় সুনীল গাভাস্কার (৯৬০৭ রান)

★সবচেয়ে কম সময়ে টেস্টে ৬ হাজার থেকে ১২ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়া।

★ উপমহাদেশের বাইরের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে উপমহাদেশের মাটিতে সবচেয়ে বেশি রান। (২৭১০ রান)

★টেস্টের তৃতীয় ইনিংসে সর্বাধিক ১৩ টি সেঞ্চুরি করা ব্যাটসম্যান।

এই তো গেল রেকর্ড বই এর কথা। অ্যালিস্টার কুক গত একযুগ ধরেই মাঠে ও মাঠের বাইরে এক বিতর্কহীন জীবন কাটিয়েছেন। কখনই প্রতিপক্ষ বা অন্য কাউকে অসম্মানের দৃষ্টিতে দেখেন নি। মানুষ হিসেবে কুক কতটা ভদ্র ও বিনয়ী সেটা তাঁর সম্পর্কে প্রতিপক্ষ দলের উপলব্ধি থেকেই বোঝা যায়।

অ্যালিস্টার কুক, ভদ্রলোকের খেলার এক কিংবদন্তি ভদ্রলোক এর রাজসিক বিদায়।
Source: myKhel

তাঁর বিদায় বেলায় ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেন, ” অসাধারণ এক ক্যারিয়ার তোমার, সব কিছুর জন্যেই তোমাকে ধন্যবাদ এবং ভবিষ্যতের জন্যে রইলো শুভ কামনা। ” 

অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ টুইট করেন, “অসাধারণ ক্যারিয়ারের জন্য অভিনন্দন অ্যালিস্টার কুক। অনন্য টেকনিক, অসাধারণ মানসিক শক্তি আর তীব্র রান-ক্ষুধার একজন খেলোয়াড়। ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বকালের সেরা হিসেবে লেখা থাকবে তাঁর নাম।”

বাংলাদেশের মুশফিকুর রহিম কুকের উদ্দেশ্যে টুইট করেন, ” কী অসাধারণ খেলোয়াড়….!!!!  তোমার জন্য শ্রদ্ধা রইল ভাই…তোমার বিপক্ষে খেলতে পারাটা সন্মানের…শেষটা একজন চ্যাম্পিয়নের মতোই।”

আর এই চ্যাম্পিয়ন কুক এর বিদায় আরো রাঙিয়ে দিয়েছে তার সতীর্থরা। শেষ টেস্টে ভারতকে হারিয়ে অসাধারণ এক সিরিজ জয়ের মাধ্যমে বিদায়ী কিংবদন্তিকে শ্রেষ্ঠ উপহারটাই দিয়েছে তাঁরা। সত্যিই, এ যেন রুপকথার গল্পের এক বাস্তব চিত্রায়ন!

সব কিছুর জন্যেই ধন্যবাদ ‘শেফ’। আর ভবিষ্যত জীবনের জন্যে রইলো অনেক অনেক শুভ কামনা। 

, , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,